রাজনীতি

সিলেটি প্রবাসিদের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের খাদ্য ও বস্ত্র বিতরন

image
Thu, September 14
03:03 2017

কানিজ ফাতেমা পিংকি:

ණ☛ পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের জনপদ কক্সবাজার। এ জেলারই একটি উপজেলা উখিয়া। মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বর্বরতার হাত থেকে জীবন বাঁচাতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা জণগোষ্ঠির আশ্রয়স্থল এখন উখিয়ার কুতপালং টেকনাফ এলাকায়। রোহিঙ্গা শরণার্থিদের অবস্থা দেখতে সরেজমিন পরিদর্শন করেন কিছু প্রবাসী। উখিয়া উপজেলার প্রায় ২০ কিলোমিটার এলাকা। যেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে রোহিঙ্গা শরণার্থি।



ক্ষুধার জ্বালা যে কত নিমর্ম তা এই ক্ষুধার্ত মানুষ গুলাকে দেখে অনুভব করা যায়।তাই উখিয়া কুতুপালং রিফিউজি ক্যাম্প টেকনাফ রোহিঙ্গাদের খাদ্য ও বস্ত্র বিতরন করতে এগিয়ে আসেন সিলেটের কিছু প্রবাসী। রফিক উদ্দীন,প্রবাসী ইউ.কে সিলেট । আব্দুল এম মুকিত,প্রবাসী ইউ.কে সিলেট। তাওহীদ আহমেদ সিপার।



সহ সভাপতি শেখরাসেল স্মৃতি সংসদ সিলেট মহানগর । এ সময় প্রবাসী দের সাথে যুক্ত হোন বিশিস্ট সমাজসেবক জনাব কাজী মোস্তফ আহমেদ শামীম (শ্রমবিষয়ক সম্পাদক) কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগ, কক্সবাজার ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি রমজান আলী, তাওহীদ আহমেদ সিপার নিউজ অর্গান টুয়েন্টি ফোর ডটকম ককে জানান আল্লাহ্ যেন এদের খাবারের ব্যবস্থা করে দেন,ত্রান যেন ঠিকভাবে প্রতিটি রোহিঙ্গা পায় ।মানবতা জেগে উঠোক এই কামনা করেন এবং তিনি বিশ্ববাসীর কাছে আবেদন করে বলেন আসুন আমি,আপনি নিজ অবস্থান থেকে,মানবতাবোধ থেকে রোহিঙ্গা মুসলিমদের জন্য এগিয়ে আসি। আসুন প্রমাণ করি,আমাদের থেকে মরে নাই মানবতা,মনুষ্যত্ব,মানুষের জন্য মানুষের ভালোবাসা,আমরা বেঁচে থাকলে বেঁচে থাকবে মানবতা,মনুষ্যত্ব,বেঁচে থাকবে মানুষ মানুষের ভালোবাসায়,বেচে থাকবে রোহিঙ্গা মুসলমানরা।

লেখাটি ৩২০ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭১৬১৮৯৯৪

অনলাইন ভোট

image
ধর্ষণ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় আপনি কি মনে করেন ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৬৬ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা