রাজনীতি

আদালতের স্থগিতাদেশের কারণে ৪ বছরের শিশুকেও মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় রাখতে হচ্ছে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

image
Mon, November 13
08:09 2017

নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম:

ණ☛ মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এ্যাডভোকেট আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, জাতির জন্য এটা খুবই লজ্জাজনক ও বেদনাদায়ক হচ্ছে যে এখনো অ-মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় রয়ে গেছে। আদালতের আদেশের কারণে এসব অমুক্তিযোদ্ধাদের বাদ দেয়া যাচ্ছে না। আদালতের স্থগিতাদেশের কারণে ৪ বছরের শিশুকেও মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় রাখতে হচ্ছে। এখনো অমুক্তিযোদ্ধাদের সরকারি ভাতা দিতে হচ্ছে। তবে আমরা আইনী লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। আর সংসদের মাধ্যমে আদালতের প্রতি আহ্বান জানাবো যেন সেই আদেশ পুনর্বিবেচনা ও প্রত্যাহার করা হয়।

সোমবার সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যদের একাধিক সম্পুরক প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে মন্ত্রী এভাবেই তাঁর অসহায়ত্ব প্রকাশ করেন।

ණ☛ মন্ত্রী জানান, বিএনপি-জামায়াত জোট ক্ষমতায় এসে ৩৩ হাজার লোকের একটা তালিকা করে। তারা কোন প্রকার নীতি নৈতিকতা ছাড়াই সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়ে প্রায় ৩৩ হাজার লোকের একটা তালিকা করে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সনদ দিয়েছিল। যাদের অধিকাংশই মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেননি। অনেকেই আবার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিরোধীতা করেছিল। এটা জাতির জন্য দু:খজনক। কোন রকম তথ্য উপাত্তের ব্যতিরেকেই তারা ইচ্ছামত তালিকা করেছিল।

ණ☛ মন্ত্রী বলেন, আদালতে মামলা থাকার কারণে এসব অমুক্তিযোদ্ধাদের এখনো তালিকা থেকে আমরা বাদ দিতে পারিনি। এবিষয়ে আদালতে ১১৬টি মামলা হয়। আমরা চেষ্টা করছি আইনী লড়াইয়ের মাধ্যমে আদালতের আদেশ প্রত্যাহার করে স্ব স্ব উপজেলায় প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রকাশ করতে।

ණ☛ তিনি বলেন, আদালত ব্যাখ্যা দিয়েছে যে, মুক্তিযোদ্ধা তালিকাভূক্ত হওয়া মানুষের মৌলিক অধিকার। কিন্তু আমরা বলছি যারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছেন কেবলমাত্র তিনিই মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হবেন, এটা কেবলমাত্র প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের মৌলিক অধিকার, সবার নয়। আদালতের আদেশের কারণে ১৯৭১ সালে যার বয়স ৪ বছর ছিল তাকেও মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। এটা সত্যিই দুঃখজনক। এদিকে আগামী তিনদিনের মধ্যে সমস্ত উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

লেখাটি ২৭৪ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৫৯১০৯০৪৪

অনলাইন ভোট

image
জনগণের নয়, বিচারকদের প্রজাতন্ত্রে বাস করছি, সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হকের এ বক্তব্যের সাথে আপনি কি একমত?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৬২৭ জন

আজকের উক্তি

আট বছরে আট মিনিটের জন্যও রাজপথে উত্তাপ না ছড়ানোর ব্যর্থতায় বিএনপির টপ-টু-বটম নেতাদের পদত্যাগ করা উচিত: ওবায়দুল কাদের