রাজনীতি

কুশিয়ারা-মনু নদীর মিলনস্থলে ভাঙ্গন প্রতিরোধে অবৈধ বালু দস্যুদের প্রতিহত এলাকাবাসীর

image
Fri, December 29
04:27 2017

বিশেষ প্রতিনিধি:

ණ☛ উল্লেখ্য বেশ কিছুদিন ধরে কুশিয়ারা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন ক্ষমতাসীন দলের কিছু সংখ্যক বালু দস্যু।যার ফলে নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে কুমারকাদা,গালিমপুর,দূর্গাপুর,হোসেনপুর,পারকুল, তাজপুর, পূর্ব তাজপুর,ব্রাক্ষণগ্রাম,শেরপুর,নাদামপুর,আলিপুর,ঐহিয়া যাতে রয়েছে চারটি থানার জনসাধারণের বিপুল সংখ্যক আবাদি জমি কিন্তু এ নিয়ে জনপ্রতিনিধিদের নেই কোন পদক্ষেপ। তারা সবকিছু দেখেও নিরব!

ණ☛ এজন্য স্হানীয় জনসাধারণেরা নিজ উদ্যেগে গড়ে তুলেছেন প্রতিরোধ তাদের প্রতিরোধের ধারাবাহিকতায় নবীগঞ্জ থানার ভ্রাম্যমাণ ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে এসে হাতে নাতে ৬ জন শ্রমিক ও বালু বোঝাই দুইটি নৌকা আটক করেন।

ණ☛ যার ফলে বালুদস্যুরা এখন স্হান পরিবর্তন করে বেছে নিয়েছেন মৌলভীবাজার ও বালাগঞ্জ থানার সীমানাবর্তী জায়গা যার একপাশে মৌলভীবাজার থানাধীন নাদামপুর ও অন্যপাশে রয়েছে বালাগঞ্জ থানাধীন আলিপুর ও ঐহিয়া গ্রাম। এখন তারা এই জায়গা থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন কিছু সংখ্যক ক্ষমতাসীন দলের দালাদের অর্থ প্রদান করে।

ණ☛ দালালদের প্রতিহত করে এই দুই এলাকার সাধারণ মানুষ বালু দস্যুদের দাউয়া করে এসময় পালিয়ে যায় বালু তোলার ড্রেজার সেখান থেকে আলিপুরের জনসাধারণ একটি বালু বোঝাই নৌকা ও চারজনকে আটক করে রেখে বালাগঞ্জ থানায় খবর দিয়েছেন।

ණ☛বর্তমানে তাদেরকে আলিপুরের মেম্বার সাহেবের হেফাজতে রাখা হয়েছে। এসময় নাদামপুরের পাশ দিয়ে বয়ে চলা কুশিয়ারা নদীর সীমানায় গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন শেরপুর পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ সাঈদ খাঁন।

ණ☛ তিনি জানান সেখানে যাতে করে কোন ধরণের দাঙ্গা না লাগে সেজন্য তিনি সঙ্গীয় ফোর্স সহ সেখানে যান। বর্তমানে পরিস্হিতি শান্ত আছে।

ණ☛ নাদামপুর ও আলিপুরের জনসাধারণের সাথে আলাপ করে জানা যায় তাদের মনে রয়েছে চাপা ক্ষোভ কখন যে কি হয় বলা যায় না।এলাকাবাসীর দাবি তারা প্রশাসনকে টাকা খাইয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন।এজন্য প্রশাসন নির্বিকার।

লেখাটি ২৪৫ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৬৯৪০৬৩১৯

অনলাইন ভোট

image
ধর্ষণ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় আপনি কি মনে করেন ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ২৭ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা