আন্তর্জাতিক

সৌদি আরবে ১২ সেক্টরে নিষিদ্ধ হচ্ছে বিদেশী শ্রমিক

image
Tue, February 6
02:21 2018

নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম।।

১২টি খাতে বিদেশী শ্রমিক নিয়োগ নিষিদ্ধ করছে সৌদি আরব। পর্যায়ক্রমে এসব খাতে শ্রমিক নিয়োগে এই বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে। এ খবর দিয়েছে ভারতের অনলাইন জি নিউজ ও লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট।

এতে বলা হয়েছে, সৌদি আরবে যেসব কোম্পানি বিদেশী শ্রমিক আমদানি করে তাদের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে এবং দেশে বেকারত্বের হার কমানোর জন্য এসব খাতে বা সেক্টরে বিদেশী শ্রমিক নিয়োগে নিষেধাজ্ঞা আসছে। সৌদি আরবের শ্রমমন্ত্রী আলী বিন নাসের আল গাফিস এমন কঠোর নীতিমালা অনুমোদন দিয়েছেন। সৌদি আরবে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ বিদেশী শ্রমিক বিভিন্ন সেক্টরে কর্মরত।

নতুন এই নীতির অধীনে তাদের বিপুল সংখ্যকের ওপর প্রভাব পড়বে। এসব শ্রমিক সেখানে কায়িক পরিশ্রমের, বিপদজনক ও কম বেতনের কাজ করেন।

এ কাজগুলোকে সৌদি আরবের নাগরিকরা এড়িয়ে চলেন। ফলে সেই শূন্যস্থান পূরণ করতে বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশ থেকে ভাড়া করা হয় শ্রমিক। পর্যায়ক্রমে এই নিষেধাজ্ঞা বহাল হবে। শুরু হবে ১১ই সেপ্টেম্বর। এদিন থেকে চারটি সেক্টরে বিদেশী শ্রমিক নিয়োগে কঠোরতা আসছে। সেক্টরগুলো হলো- ১. গাড়ি ও মোটরসাইকেলের শোরুম। ২. তৈরি পোশাকের দোকান। তিন. বাসাবাড়ি ও অফিসে ব্যবহৃত আসবাবপত্রের দোকান ও চার. বাসাবাড়ির বিভিন্ন কাজ ও রান্নাঘরের তৈজসপত্রের দোকান।

দ্বিতীয় দফায় তিনটি সেক্টরে প্রয়োগ করা হবে এই বিধিনিষেধ। এটা কার্যকর হবে ৯ই নভেম্বর থেকে। এগুলো হলো ইলেকট্রনিক্সের দোকান, ঘড়ির দোকান ও চশমার দোকান। তৃতীয় দফা কার্যকর হবে ৭ই জানুয়ারি থেকে। এদিন এ বিধিনিষেধ কার্যকর হবে ৫টি সেক্টরে। এগুলো হলো মেডিকেল সরঞ্জাম ও সরবরাহের দোকান, ভবন নির্মাণের সামগ্রির দোকান, গাড়ির খুচরা যন্ত্রাংশের দোকান, কার্পেট বিক্রির দোকান ও মিষ্টির দোকান।

উল্লেখ্য, ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সসীমায় থাকা সৌদি আরবের নাগরিকদের মধ্যে গত বছর বেকারত্বের শতকরা হার ছিল ৩২.৬ ভাগ। এ তথ্য শ্রমিকদের আন্তর্জাতিক সংগঠন আইএলও’র। গত বছর সেখানে সৌদি আরবের মানুষদের জন্য কর্মসংস্থানের জন্য অর্থনৈতিক সংস্কার শুরু হয়। এর উদ্দেশ্য ২০২০ সালের মধ্যে বেকারত্বের হার কমিয়ে আনা।

লেখাটি ২২১ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭৪৮৪৪১৯৪

অনলাইন ভোট

image
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে অব্যাহত ক্রসফায়ার সমর্থন করেন কি?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৭৮ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা