রাজনীতি

জেলা প্রশাসকের অনুমতি অগ্রাহ্য করে বানিয়াচংয়ের মসজিদে আগুন ও সুন্নি সম্মেলনে বাঁধা; ২০জনকে আসামী করে মামলা

image
Fri, February 23
03:28 2018

হবিগঞ্জ সংবাদদাতা।।

জেলা প্রশাসকের অনুমতি অগ্রাহ্য করে বানিয়াচংয়ের মসজিদে আগুন ও সুন্নি সম্মেলনে বাঁধা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ায় হবিগঞ্জে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ২০জনকে আসামী করে মামলা দায়ের।

জেলা প্রশাসকের এর অনুমতি অগ্রাহ্য করে গত ১৪ ইং ফেব্র“য়ারী বানিয়াচং উপজেলার দৌলত পুর গ্রামের উত্তরপাড়া সুন্নি জামে মসজিদ পুড়ানো ও সুন্নি সম্মেলনে বাঁধা প্রদান সহ ক্ষয়ক্ষতি করায় গত রবিবার হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত -৪ এ দৌলত পুর গ্রামের মসজিদ কমিটির সভাপতি ও সুন্নি সম্মেলন কমিটির পক্ষে মন্নান মিয়াজি সহ ২০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করে মোহাম্মদ ইসালাম উদ্দিন মামলা নং সি, আর ৪৬/ ১৮ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে ঈৎ.চঈ ২০২ ধারানুসারে তদন্তকালে যদি ২৯৫-ক অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে সরকার কিংবা সরকারের পক্ষে যথাযথ কতৃপক্ষের পূর্বানুমতি ( ংধহপঃরড়হ) গ্রহণপূর্বক তদন্ত প্রতিবেদন অত্র আদালতে দাখিল করার জন্য অফিসার ইনচার্জ, বানিয়াচং থানাকে আগামী ১২/০৪/২০১৮ ইং তারিখের মধ্যে নির্দেশ প্রদান করেন।

মামলার বিবরণে প্রকাশ গত ২৭/১২/২০১৭ ইং তারিখে হবিগঞ্জের মাননীয় জেলা প্রশাসক বরাবরে বানিয়াচং উপজেলা দৌলতপুর ইউনিয়নে দৌলত পুর গ্রামের উত্তরপাড়া সুন্নি জামে মসজিদের বার্ষিক দুইদিন ব্যাপী সুন্নি মহা সম্মেলনে অনুমতি পাওয়ার জন্য আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ১৫ ও ১৬ ইং ফেব্র“য়ারী সুন্নি মহা সম্মেলনে অনুমতি প্রদান করেন জনাব তারেক মোহাম্মদ জাকারিয়া, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট হবিগঞ্জ।

এদিকে মাহফিলকে সফল করার জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ মুহূর্তে গত ১৪ ই ফেব্র“য়ারী দৌলত পুর বাজারে দৌলতপুর গ্রামের কিছু উগ্রপন্থী ওয়াহাবী লোকরা সুন্নি সম্মেলন বানচালের জন্য সুন্নিদেরকে বেদাত পন্থী বলে মিছিল সভা শুর“ করলে বানিয়াচং থানার এস।আই সাইফুল ইসলাম ঘটনাস্থলে এসে উভয়পক্ষের সাথে পৃথকভাবে কথা বলেন এবং সুন্নি মহা সম্মেলনের পক্ষের লোকদেরকে তাদের শর্ত সাপেক্ষে জেলা প্রশাসনের অনুমতি অনুযায়ী পরের দিন ১৫ই ফেব্র“য়ারী মাহফিল পরিচালনা করার জন্য নির্দেশ দেন এবং বিরোধী ব্যক্তিদেরকে এই সম্মেলনে বিশৃঙ্খলা না করতে বলেন। এদিন রাত্রে বানিয়াচং থানার ওসির নিকট মাহফিলের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ দেওয়ার আবেদন করিলে তিনি আবেদনটি আমলে নেননি। এদিন ১৪ তারিখ দিবাগত রাত্রে মামলার আসামীরা এক যোগে সংগবদ্ধ হয়ে সুন্নি সম্মেলনের লোকদের উপর হামলা করে এবং মসজিদে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি করে।

এখানে আরও উল্লেখ করা আবশ্যক যে, একই দিন ১৪ তারিখ নবীগঞ্জ থেকে প্রকাশিত দৈনিক সময় পত্রিকায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংখায় দৌলতপুর সুন্নি সম্মেলন বন্ধ করতে মন্নান নিয়াজী এই মামলার প্রধান আসামী আহব্বান জানিয়ে ছিলেন। এই দিনই রাত্রে মসজিদ পুড়ানো ও সম্মেলনে বাঁধা প্রদান করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা হয়। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে যেকোনো সময় মামলার বাদী সহ সম্মেলনের আয়োজকদের উপর আসামীরা হামলা করতে পারে আশংখা করছে। বাদীপক্ষের মামলাটি পরিচালনা করেন এড. মহিবুর রহমান বাহার।

লেখাটি ১৫৮ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭১৬৭৫৪১৯

অনলাইন ভোট

image
ধর্ষণ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় আপনি কি মনে করেন ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৬৭ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা