রাজনীতি

পুলিশ যা করেছে তাকে তান্ডবই বলে!

image
Tue, April 10
02:58 2018

মেজর অব. মো. আখতারুজ্জামান:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাড়ী ভাঙ্গার কারন ভিসির বক্তব্যের মধ্যেই আছে। এ নিয়ে পরিবেশটাকে নতুন করে ঘোলা করার কোন প্রয়োজন নাই বলে জনগণ মনে করে।

এখন সকলের মহলের একটি প্রশ্ন, কোটা সংস্কারের সঙ্গে ভিসির কোন হাত নাই তা আন্দোলনকারীরাও জানে তাহলে ভিসি বাড়ীতে হামলা হল কেন? ভিসি তার বক্তব্যে বলেছেন যে তিনি পুলিশকে চারুকলা পর্যন্ত তান্ডব চালাতে অনুমতি দিয়েছেন। তান্ডব বলছি এই জন্য যে পুলিশ যা করেছে তাকে তান্ডবই বলে। তাই অতি স্বাভাবিকভাবে জনমনে প্রশ্ন জাগে তিনি কেন পুলিশকে চারুকলা পর্যন্ত তান্ডব চালাতে দিলেন?

কোটা সংস্কারের আন্দোলন চলছিল শাহবাগ চত্তরে যা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমার বাইরে। তাহলে ভিসির কথা অনুযায়ী এটি পরিস্কার যে ভিসি পুলিশের তান্ডবের কথা আগে থেকেই জানতেন এবং পুলিশ ভিসির পুর্বানুমতি নিয়েই শাহবাগ চত্তরে শান্তিপূর্ন আন্দোলনটিকে সহিংস রুপ দেয়ার ষড়যন্ত্র পাকাতে কোন কারন ছাড়াই বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করে নিরিহ নিরাপরাধ ছাত্র ছাত্রীদের উপর অনাহুত এ্যাকসন নেয়ার ছারপত্র পুর্বেই তিনি পুলিশকে দিয়ে দেন যা কোন নৈতিকতায়ই গ্রহনযোগ্য নয়।

ভিসির অনুমতি অনুযায়ী পুলিশের এ্যাকসন নেয়ার ক্ষমতা ছিল চারুরলা পর্যন্ত। কিন্তু আন্দোলনকারীরা পুলিশের তান্ডবে শাহবাগে থাকতে না পেরে প্রথমে চারুকলায় এসে আশ্রয় নেয় এবং পরবর্তিতে চারুকলায়ও ঠিকতে না পেরে তারা টিএসসি মোর ও রাজু ভাস্কর্য চত্তরে এসে প্রথমে আশ্রয় নেয় এবং পুনরায় জমায়েত হয়। ভিসি যেহেতু ভেবেছিল ছাত্ররা শাহবাগ চত্তর থেকে বিতারিত হয়ে চারুকলায় এসেও যদি পুলিশের হামলা থেকে নিরাপদ হতে না পারে তাহলে তারা ছত্রভংগ হয়ে পালিয়ে যাবে।

কিন্তু হিতে বিপরিত হয়ে গেল এবং পুলিশি তান্ডবের কারনে আবাসিক হল থেকে সাধারন ছাত্র ছাত্রীরা বেড়িয়ে আসাতে সম্ভবত পুলিশের ও ভিসির পরিকল্পনা মার খেয়ে যায়। যার ফলে পুলিশ ও ভিসি নতুন ফন্দি আটে পুলিশকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে ডুকানোর। তাই হয়তো তারা যৌথভাবে গৃহীত নতুন পরিকল্পনার অংশ হিসাবে ভিসির বাড়ী ভাঙ্গচুরের নাটক বাস্তবায়িত করে বলে জনগণের ধারনা। কারন ভিসি বলেছেন এগুলি অভিজ্ঞ ও দক্ষ সন্ত্রীসীদের কাজ এবং তাতে হত্যার উদ্দেশেই ভিসির বাড়ী ভাঙ্গচুর করা হয়েছে তবে মারধরের কোন আলামত অবস্যই দেখা যায় নাই। এবং এও বলেছেন যা তারা কেউই ছাত্র নয়।

এদেশে অভিজ্ঞ ও দক্ষ সন্ত্রাসী কারা তা কিন্তু জনগণ ভাল করেই জানে এবং বুজে ! ভিসির বাড়ীতে ভাঙ্গচুরের পরে সেথায় ভোর চারটা নাগাদ পুলিশ ও বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর ব্যাপক সমাবেশ ঘটে যার ফলে ভিসির বাড়ী ভাঙ্গচুরের কারন ও প্রেক্ষাপট জনগণের কাছে “জলবৎ তরলঙ্গের” মতি পরিস্কার হয়ে যায় !!!

আন্দোলন থেমে গেছে। আলোচনার মাধ্যমে এর সমযোতা হয়ে গেছে। যুদ্ধে ক্ষতি যা হবার তা যুদ্ধের নিয়ম মোতাবেকই হয়ে গেছে। এখন ভিসির বাড়ী নিয়ে আর নতুন করে কোন হাঙ্গামা না পাকিয়ে সবাইকে খোলামনে সব কিছু মেনে নিয়ে সমস্যা সমাধানের যে দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রীর কাধে দেয়া হয়েছে তার ইতিবাচক সমাধানের জন্য অপেক্ষা করাই আমাদের সবার জন্য মংগল।

সাবেক সংসদ সদস্য।

লেখাটি ৩৫৩ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৬৯৭০২০১৯

অনলাইন ভোট

image
ধর্ষণ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় আপনি কি মনে করেন ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হওয়া উচিত?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৩২ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা