প্রধান শিক্ষ‌কের বিরু‌দ্ধে অনাস্থা এনে স্কুল ম্যা‌নে‌জিং ক‌মি‌টির পদত্যাগ

রাজনীতি

প্রধান শিক্ষ‌কের বিরু‌দ্ধে অনাস্থা এনে স্কুল ম্যা‌নে‌জিং ক‌মি‌টির পদত্যাগ

image
Fri, April 27
12:28 2018

মোঃ ইউনুস আলী, লালম‌নিরহাট প্র‌তি‌নি‌ধি:

বিদ্যালয়ের সার্বিক তত্ত্বাবধান ও উন্নয়নে ব্যবস্থাপনা ক‌মি‌টির সা‌থে সমন্বয় না রে‌খে ই‌চ্ছেমত প্র‌তিষ্ঠান পরিচালনা করা, কারো সাথে বনিবনতা না থাকায় প্রধান শিক্ষ‌কের বিরু‌দ্ধে অনাস্থা এনে ম্যা‌নে‌জিং ক‌মি‌টির সকল সদস্য একযোগে পদত্যাগ করেছেন।
তবে ঐ প্রধান শিক্ষক সুলতান আহম্মেদ শিপুকে অন্যত্র বদলী করানো হলে তারা পুনরায় বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটিতে ফিরে আসতে পারেন বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকে জানান।

আর এ ঘটনা‌টি ঘটেছে লালম‌নির হা‌টের হাতীবান্ধা উপ‌জেলার মধ্য গ‌ড্ডিমারী সরকারী প্রাথ‌মিক বিদ্যাল‌য়ে।

বুধবার (২৬ এপ্রিল) হাতীবান্ধা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবরে প্রেরিত ঐ বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি খলিলুর রহমানসহ ৭ সদস্যের স্বাক্ষরিত পদত্যাগ পত্রে তারা উল্লেখ করেন, প্রধান শিক্ষক সুলতান আহম্মেদ শিপু বিদ্যালয়ে যোগদানের পর থেকে কমিটির কোন সদস্যের সাথে তার কোন বনিবনতা নেই। বিদ্যালয়ের সার্বিক তত্ত্বাবধান, উন্নয়নসহ সকল ক্ষেত্রে তিনি নিজের ইচ্ছামত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। অভিভাবকদের সাথে প্রধান শিক্ষকের কোনো সু সর্ম্পক নাই। ফলে তারা বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির স্ব-স্ব পদ থেকে পদত্যাগ করেন।

পদত্যাগকারী অপর সদস্যরা হলেন, সহ-সভাপতি জাবেদ আলী, সদস্য আফরোজা বেগম, মশিয়ার রহমান, জিল্লুর রহমান, শিউলী বেগম ও আঞ্জুয়ারা বেগম।

বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি’র সভাপতি ও গড্ডিমারী ইউ-পি সদস্য খলিলুর রহমান জানান, প্রধান শিক্ষক সুলতান আহম্মেদ শিপু বিদ্যালয়ের কোন বিষয়েই আমাদের সাথে সমন্বয় বা যোগাযোগ রাখেন না। বিদ্যালয়ের উন্নয়ন বা শিক্ষার মানোন্নয়নে আমরা কোন সিদ্ধান্ত দিলে তিনি তা গ্রাহ্য করেন না। তিনি নিজের ইচ্ছেমত ঐ প্রতিষ্ঠান চালান। আমাদের কারো সাথে তার কোন সম্পর্ক নেই। ফলে বিদ্যালয়ে শিক্ষার মান দিনদিন খারাপ হচ্ছে। বিধায় বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সকল সদস্য সিদ্ধান্ত নিয়ে এক যোগে পদত্যাগ করি।
আর এ পদত্যাগপত্র হাতীবান্ধা উপজেলা চেয়ারম্যান, নির্বাহী অফিসার ও শিক্ষা অফিসে জমা দিয়েছেন বলে তিনি আরও জানান।

এবিষয়ে কথা হলে ঐ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুলতান আহেম্মদ শিপু জানান, তিনি সকল নিয়ম নীতি মেনেই বিদ্যালয় পরিচালনা করছেন। কমিটির সাথে তার ও অন্য শিক্ষকদের সু-সর্ম্পক রয়েছে। তারপরও কি কারণে তারা পদত্যাগ করছে তা তার জানা নেই।

হাতীবান্ধা উপজেলা ভারপ্রাপ্ত প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, অফিসের কাজে আমি রংপুরে আছি। শুনেছি, একটি পদত্যাগ পত্র আমার অফিসে দিয়ে গেছেন। অফিসে গিয়ে এবিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

লেখাটি ১০৫ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭৬৩৪২৯৭৯

অনলাইন ভোট

image
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে অব্যাহত ক্রসফায়ার সমর্থন করেন কি?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৯৩ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা
Changer.com - Instant Exchanger