রাজনীতি

শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে সিডনিতে দুই দিন ব্যাপী বিএনপির ব্যতিক্রমী বিক্ষোভ ও অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমে তার প্রতিক্রিয়া

image
Sun, April 29
01:05 2018

সিডনি রিপোটার:

অ্যামেরিকা ভিত্তিক একটি এনজিও গ্লোবাল সামিট অফ উইম্যান এর সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল প্রায় দুইশতাধিক সঙ্গী সহ দুই দিন ব্যাপী অস্ট্রেলিয়া সফরে আসলে প্রবাসী বাংলাদেশীদের বিপুল বিক্ষোভের মুখে পড়েন।


প্রথম দিন, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ শুক্রবার বিকেল ৫ টায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টার সিডনীতে আসলে তার আগমনের প্রতিবাদে সম্মেলনস্থলের বাইরে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশীরা সমবেত হন।

বিক্ষোভকারীদের শান্তিপুর্ণ কিন্তু সরব উপস্থিতির কারণে শেখ হাসিনা কনভেন্সন সেন্টারের মূল দরজা দিয়ে প্রবেশ না করে পেছনের সার্ভিস এন্ট্রি দিয়ে প্রবেশ করেন। ডার্লিং হারবার এলাকায় কনভেনশন সেন্টার চত্বরে এ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি আয়োজিত এ উদ্যোগের সাথে অষ্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশী সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও অরাজনৈতিক দল এবং সামাজিক সংগঠনের নেতাকর্মীরাও একাত্ততা ঘোষণা করে যোগদান করেন। এ প্রতিবাদ সমাবেশে সিডনী সহ অষ্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন শহর থেকে আগত সাধারণ বাংলাদেশীরা তাদের বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সদস্যদের নিয়ে উপস্থিত হয়ে বাংলাদেশে চলমান গণতন্ত্র ও মানবাধিকার পুনরুদ্ধার আন্দোলনে তাদের সমর্থন জানান।

দ্বিতীয় দিন, ২৮ শে এপ্রিল ২০১৮ শনিবার স্থানীয় সফিটেল হোটেলে অস্ট্রেলিয়া আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে এলে শেখ হাসিনা আবারও তুমুল বিক্ষোভের মুখে পড়েন। এদিনও তাকে পেছনের দরজা ব্যাবহার করতে দেখা যায়।
দুই দিন ব্যাপী এই বিক্ষোভে ব্যতিক্রমী ও সবচেয়ে লক্ষণীয় ছিল একটি বিশাল বিজ্ঞাপনী মোবাইল ট্রাক যার চার পাশ ইংরেজি ভাষায় লিখা বিভিন্ন ধরনের স্লোগান, ছবি ও কার্টুন দিয়ে সাজানো ছিল। বিক্ষোভের সময় এই ট্রাকটি সমাবেশ স্থলকে কেন্দ্র করে চারিদিকে ঘুরছিল। পথচারী ও সাংবাদিকদের এসময় উৎসাহের সাথে ট্রাকের ছবি নিতে দেখা যায়। একপর্যায়ে ট্রাকটি ম্যাকুয়ারি স্ট্রিট এবং কলেজ স্ট্রিটের সংযোগস্থলে শেখ হাসিনার গাড়ি বহরের সামনে পড়ে যায়।

এরপর নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশদের বিশেষ অনুরোধে বিক্ষোভকারীরা ট্রাকটিকে ঘুরা ঘুরি না করে সফিটেল হোটেল থেকে একটু দুরে দাঁড় করিয়ে রাখেন।
এই বিক্ষোভ অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় গণমাধ্যমগুলোর বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষন করে। অস্ট্রেলিয়ার সরকারি টেলিভিশন চ্যানেল এসবিএস তাদের সান্ধ্যাকালিন মুল সংবাদে বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী সামাজিক নেতৃবৃন্দের বক্তব্য সহ বিক্ষোভের সংবাদ সম্প্রচার করে। এছাড়াও অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় টেলিভিশন চ্যানেল এবিসি এবং চ্যানেল সেভেনেও বিক্ষোভের সংবাদ প্রচারিত হয়। অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের কাছে সমাবেশে অগতরা উল্লেখ করেন যে শেখ হাসিনার মত একজন স্বৈরাচারী শাসককে গণতন্ত্র, মানবাধিকার, মুক্তচিন্তা ও বহুমাত্রিক সংস্কৃতির দেশ অষ্ট্রেলিয়াতে স্বাগত জানানো সম্ভব নয়। তারা বলেন প্রত্যেক বাংলাদেশীর উচিত শেখ হাসিনার প্রকৃত রুপ ও বাস্তবতা সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সচেতন করে তোলা।

উভয় দিনের বিক্ষোভেই বিভিন্ন স্লোগানে সমগ্র এলাকা মুখরিত হয়ে উঠে। উপস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশীরা সমস্বরে শেইম অন হাসিনা, সে নো টু ডিক্টেটর শেখ হাসিনা, কিলার হাসিনা ইজ নট ওয়েলকামড ইন অস্ট্রেলিয়া, ফ্রি মাদার অফ ডেমোক্রেসি, আমার নেত্রী আমার মা বন্দি রাখতে দেবনা ইত্যাদি স্লোগানে উপস্থিত সবাই প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। সকলের হাতে এসময় শোভা পাচ্ছিল গুমখুনের স্বীকার হওয়া মানুষদের ছবি, খালেদা জিয়ার ছবি, শেখহাসিনার ব্যাঙ্গাত্বক ছবি সহ বিভিন্ন ধরনের স্লোগান লিখা প্ল্যাকার্ড এবং ব্যানার।

এই প্রতিবাদ বিক্ষোভের সংগঠক হিসেবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মো:দেলোয়ার হোসেন,মনিরুল হক জর্জ,আব্দুল্লাহ ইউসুফ শামিম,শিবলি আব্দুল্লাহ,মোঃমোসলেহ উদ্দিন হাওলাদার আরিফ,নাসিরুল্লাহ,লিয়াকত আলী স্বপন,ডাঃ আব্দুল ওহাব, মোহাম্মদ রাশেদুল হক, হাবিব মোহাম্মদ জকি, আবুল হাসান, মোহাম্মদ হায়দার আলী, কুদরতরউল্যাহ লিটন,আরিফুল হক,একে এম ফজলুল হক শফিক,এসএম নিগার এলাহী চৌধুরী,তৌহিদুল ইসলাম, সোহেল ইকবাল,আবু সাইয়েদ শিবলু গাজী, তারেক উল ইসলাম তারেক,মোঃ রেজাউল হক,জাকির আলম লেনিন, নাসিম উদ্দিন আহম্মেদ,এএন এমমাসুম,সাইয়েদা খানম আংগুর, রিয়াজুদ্দিন আহমেদ মনি,তোরাব আহমেদ,ইলিয়াস,ইয়াসিরআরাফাত সবুজ,জাকির হোসেন,হাবিবুর রহমান,আব্দুস সামাদ শিবলু,জাকির লিটন,মোঃরুহুল আমিন,আবুল কালাম আজাদ,খাইরুল কবির পিন্টু,আব্দুল মতিন, ইন্জিনিয়ার কামরুল ইসলাম শামীম,আশরাফুল আলম রনি,আজাদ কামরুল হাসান,জাহাংঙ্গীরআলম,আশিক সরকার,জাকির হোসেন রাজু,এসএম খালেদ,আব্দুল্লাহ আল মামুন,মোহাম্মদ জুম্মন হোসেন,জেবল হক জাবেদ,ফেরদৌস অমি,মুন্নি চৌধুরী,মিতা কাদরী,মোহাম্মদ ইউসুফ,মোঃআবুল কাশেম,আনিসুর রহমান,সালাম মিয়া,নজরুল ইসলাম,শফিকুল ইসলাম,মোঃরাশেদ খান,হুমায়ুন কবির,আব্দুল করিম,মিজানুর রহমান,রিপন মিয়া, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন , মোহাম্মদ নাসির আহমেদ, আরমান হোসেন, ফরিদউদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।

লেখাটি ১৫১৯ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭৮৬৮০৩৯৯

অনলাইন ভোট

image
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে অব্যাহত ক্রসফায়ার সমর্থন করেন কি?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ১১২ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা
Changer.com - Instant Exchanger