রাজনীতি

র‍্যাবকে প্রশ্ন; আপনারা কেন আমার স্বামীকে খুন করছেন?: আমরা শুধু ওপরের অর্ডার পালন করছি!

image
Sun, June 3
03:17 2018

নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম:

কক্সবাজারের টেকনাফে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে পৌর কাউন্সিলর একরামুল হক নিহত হওয়ার পর শুরু হয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। একরামুলের এই মৃত্যু নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। এদিকে একরামুল হকের স্ত্রী আয়েশা বলেন, ‘একরাম মারা যাওয়ার পর আমরা যখন হসপাতালে তার লাশ আনতে গেলাম তখন সেখানে র‍্যাব-৭-এর গাড়ি দেখে তাদের বললাম, আপনারা কেন আমার স্বামীকে খুন করছেন? তখন ওনারা বলেছেন, ওপর থেকে অর্ডার এসেছে। আল্লাহর কাছে বিচার দেন। আমরা কাজ করার মানুষ। আমরা শুধু অর্ডার পালন করছি।’

শুক্রবার বিবিসিতে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন। এছাড়া তিনি অভিযোগ করেছেন, র‍্যাব ও একটি সংস্থার লোকেরা তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করেছেন।

এদিকে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একরামুল নিহত হওয়ার আগ মুহূর্তের কথোপকথন ও ওই সময়ের পরিস্থিতি নিয়ে একটি অডিও টেপ গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান বলেন, অডিও টেপটি তাদের নজরে এসেছে। বিষয়টি তারা খতিয়ে দেখছেন।

একরামুল হকের স্ত্রী আয়েশা বেগম বলেন, ‘একরামুল হক ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন না। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচনের জন্য বিচার বিভাগীয় তদন্ত প্রয়োজন। এ জন্য আমি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’

মাদকবিরোধী অভিযানে গত ২৬ মে দিবাগত রাতে টেকনাফে গুলিতে নিহত হন একরামুল হক। এ ঘটনার পর থেকেই স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও পরিবার দাবি করে আসছে, বিভিন্ন তালিকায় তার নাম থাকলেও একরামুল ইয়াবা ব্যবসায়ী ছিলেন না। একরামুলের স্ত্রী গত বৃহস্পতিবার কক্সবাজার প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেও একই কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে একরামুল হকের সঙ্গে তার কথোপকথনের রেকর্ড সাংবাদিকদের শোনানো হয়। এতে গুলির শব্দ, লোকজনের চিৎকার ও বাঁশির আওয়াজ শোনা যায়।

এ ঘটনার ব্যাপারে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মিজানুর রহমান বলেন, ‘এত দিন আমাদের বলা হচ্ছিল বন্দুকযুদ্ধে তারা নিহত হচ্ছে। কিন্তু অডিও ক্লিপটা শুনে এটা স্পষ্ট যে সেখানে বন্দুকযুদ্ধের ধারেকাছেরও কোনো ঘটনা ঘটেনি। যুদ্ধের লেশমাত্রও নেই। যা হয়েছে সেটা বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড।’

একরাম নিহত হওয়ার পর তার পরিবার আর টেকনাফে নেই। স্ত্রী আয়েশা বেগম দুই কিশোরী মেয়ে তাহিয়াত ও নাহিয়ানকে নিয়ে চট্টগ্রামে বাবার বাড়িতে চলে গেছেন। তাহিয়াত অষ্টম ও নাহিয়ান ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ছে।

লেখাটি ৬৫৮ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭৩২৮১৪৭৯

অনলাইন ভোট

image
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে অব্যাহত ক্রসফায়ার সমর্থন করেন কি?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ৫১ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা