রাজনীতি

সংসদ ভেঙ্গে নির্বাচনে আসতে ওবায়দুল কাদেরকে মেজর আখতারের খোলা চ্যালেঞ্জ

image
Wed, July 11
10:55 2018

মেজর (অব.) মো. আখতারুজ্জামান:

সেতু মন্ত্রী ওবাইদুল কাদের সাহেবকে বলছি:

বিএনপি তার জনপ্রিয়তা নিয়ে চিন্তিত নয় বা যাচাই করারও প্রয়োজন মনে করে না। বিএনপির জনপ্রিয়তা নিয়ে যদি আপনার বা সরকারের কোন সন্ধেহ থাকে এবং সাহস থাকলে দেশমাতা খালেদা জিয়াকে মুক্তি এবং বর্তমান সংসদ ভেঙ্গে দিয়ে ২০১৯ সনের ফেব্রুয়ারী বা মার্চে নির্বাচন দিতে সরকারকে বলেন।

২০১৯ সনের ফেব্রুয়ারী বা মার্চে নির্বাচন দিতে এইজন্য বলছি যাতে সংবিধানের সকল সুযোগ সুবিধা শেষ দিন পর্যন্ত ভোগ করে নিতে পারেন। সেই সঙ্গে আইনের শাসনের প্রতি আপনাদের নুনতম শ্রদ্ধাবোধ এবং আত্ম সম্মানবোধ থাকে তাহলে আমাদের বিরুদ্ধে পুলিশ ও প্রশাসনকে লেলিয়ে না দিয়ে আপনাদের রাজনৈতিক দল নিয়ে মাঠে আসেন।

জনগণকে জনগণের ভোট দিতে সুযোগ দেন। তাহলে আমরা জাতীয় নির্বাচনে অবস্যই আসবো এবং নির্বাচনের রায় মেনে নিব। তবে পুলিশ ও প্রশাসনের বিপক্ষে আমরা লড়তে চাই না এবং লড়তে পারবোও না। আমরা নিয়মতান্ত্রীক রাজনীতিতে বিশ্বাস করি। তবে অত্যান্ত স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই সরকার যে ভাবে রাজনীতি করছে তা মেনে নেয়া যায় না।

দেশ ও জনগণের স্বার্থে এবং কল্যানের জন্য আমরা মেনে নিতে বাধ্য হচ্ছি তাই সরকারকে দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলে দিতে চাই এদেশের জনগণ দুর্নীতিবাজ, খুনী বা সন্ত্রাসী নয় যে সবাই আপনাদের জেল জুলুম নির্যাতন গুম ও হত্যাকে ভয় করে। জনগণ এদেশ থেকে জেল জুলুম নির্যাতন গুম হত্যা সন্ত্রাসের রাজনীতির অবসান চায়। অবসান করার দায় এবং দায়িত্ব সরকারের।

জনগণ শান্তি চায়। নিরাপদে বাঁচতে চায়। যদি আমার মৃত্যুর বিনিময়েও সকল হত্যা ও প্রতিশোধের রাজনীতির শেষ হয় তবে আমাকে হত্যা করুন কিন্তু আল্লাহর ওয়াস্তে আপনারা দেশের মানুষকে শান্তি দিন। যদিও জনগণ নিরব থেকে সকল হত্যার দায়দায়িত্ব পরোক্ষ ভাবে নিজেদের কাধে নিয়ে নিচ্ছেন।

কিন্তু সব কিছুর পরেও জনগণ নির্বাচন চায়। একটি গ্রহনযোগ্য অংশগ্রহনমুলক সুষ্ট নির্বাচন চায়। জনগণ শান্তিপুর্নভাবে প্রতি ৫ বছর অন্তর শাসক নির্বাচনের ক্ষমতা চায় যা প্রধানমন্ত্রী আজকে (১০-৭-১৮) সংসদে ভাষনে বলেছেন। জনগণ প্রধানমন্ত্রীর কথায় আস্তা রাখতে চায়। জনগণ বিশ্বাস করতে চায় নেতারা যা বলেন বা করেন তা জনগণের ও স্বার্থে করেন বা বলেন। জনগণ এর প্রমান চায়।

পরিশেষে বলতে চাই জনাব কাদের সাহেব রাজনৈতিক ভাবে আপনাদেরকে মোকাবিলা করতে আমরা প্রস্তুত। রাজনৈতিক ভাবে মাঠে আসুন। আমরাও আপনাদের মত শান্তিপ্রিয় এবং সন্ত্রাসের বিপক্ষে। মাঠে আমরা দুই পক্ষই খেলবো। জনগণই নির্ধারন করবে সেরা এবং গ্রহনযোগ্য কে। রায় দেওয়ার জন্য রেফারী , লাইন্সম্যান বা নিরাপত্তা কর্মীরা কেউ না।

কাদের সাহেবকে ধন্যবাদ।

লেখক: সাবেক সংসদ সদস্য।

লেখাটি ১৭২৬ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭৭৯৭৬৭২৪

অনলাইন ভোট

image
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে অব্যাহত ক্রসফায়ার সমর্থন করেন কি?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ১০৬ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা
Changer.com - Instant Exchanger