রাজনীতি

ভোল পাল্টালেন সোহেল তাজ

image
Thu, August 9
03:50 2018

নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম:

তরুণ প্রজন্মকে ‘স্বৈরাচারী শাসন’ চেনাতে দেয়া এক ফেসবুক স্ট্যাটাসেই নায়ক বনে গিয়েছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সোহেল তাজ। তিনি তার ‘স্বৈরাচারী শাসন’ চেকলিস্টে প্রকাশ করেছিলেন স্বৈরাচারী শাসন চিনে নেবার কয়েকটি লক্ষণ। ইঙ্গিতও করেছিলেন ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের দিকে।

কিন্তু দেশবাসীকে হতাশ করে এই নেতা নতুন সংশোধন আনলেন তার স্ট্যাটাসে। পুরনো স্ট্যাটাসের সাথে জুড়ে দিলেন, “এর প্রায় সবই ৪ দলীয় জোট সরকারের শাসনামলে আমার বেক্তিগত পর্যবেক্ষণ ও অভিজ্ঞতা থেকে”। আর তাতেই পাল্টে গেল পুরো বক্তব্য।

এখন কথা হল, সকালে দেয়া স্ট্যাটাস সন্ধ্যায় সংশোধন করে বিএনপিকে আক্রমন করার মধ্য দিয়ে তিনিই তার প্রথম চেকলিস্টের প্রমাণ দিলেন না তো? চেকলিস্টের প্রথম লক্ষণটাই যে ছিল, মুক্ত চিন্তার বিষয়টি।

দ্বিতীয়টি কথা হল, সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট মনিটরের বিষয়টি। ৪ দলীয় ঐক্যজোটের সময় সোহেল তাজ তার অভিজ্ঞতায় সোশ্যাল মিডিয়ায় মনিটরিং কোথায় পেল সেটাও জনগণকে ভাবাবে।

সোহেল তাজ ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ফজলুল করিম সেলিমের অসদাচরণের প্রতিকার না পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপর ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তখন থেকেই তরুন প্রজন্মের মাঝে আরও বেশি জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন তিনি। কিন্তু জনগণকে হতাশ করে বক্তব্যকে পুরোপুরি ঘুরিয়ে দিয়ে যেন আওয়ামী লীগের নিত্তনৈমিত্তিক স্বভাবের প্রকাশ ঘটালেন।

চেকলিস্টে থাকা সরকারের সমালোচনা করা রাষ্ট্রদোহ, বিনা বিচারে হত্যা ও গুম, রিমান্ডের অপব্যবহার, পুলিশকে পেটোয়া বাহিনী হিসেবে ব্যবহার, সংবাদপত্রকে রিপোর্ট করতে বাধা দেয়ার মতো ঘটনাগুলো কখন ঘটছে; সেটাও দেখার বিষয়।

সোহেল তাজের পূর্বের স্টাটাসটি হুবহু তুলে দেয়া হলো—

বঙ্গবন্ধু এবং তাজউদ্দীন আহমদ এর হাতে গড়া সংগঠন আওয়ামী লীগ তার জন্মলগ্ন থেকে গণমানুষের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন করেছে এবং মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এনেছে এই দেশের মানুষের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্যI পরবর্তীতে একই ধারায় আওয়ামী লীগ জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রতিটি সংগ্রামের নেতৃত্ব দিয়েছেI

ইদানিংকালে আমরা অনেকেই স্বৈরাচারী শাসন কি তা হয়তো ভুলে গিয়েছিI নতুন প্রজন্মের জন্য ছোট্ট করে নিম্নে কিছু নমুনা দিলাম যাতে করে আমরা ভবিষ্যতে স্বৈরাচার কি তা চিহ্নিত করতে পারিI

স্বৈরাচারী শাসন চেকলিস্ট:

১. যখন সাধারণ মানুষ তার মুক্ত চিন্তা ব্যক্ত করতে ভয় পায়।

২. যখন দল, সরকার এবং রাষ্ট্র একাকার হয়ে যায় আর সরকারকে সমালোচনা করলে সেটাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতা বলে আখ্যায়িত করা হয়।

৩. যখন দেশের প্রচলিত নানা আইন এবং নতুন নতুন আইন সৃষ্টি/তৈরি করে তার অপব্যবহার করে রিমান্ডে নেয়া এবং নির্যাতন করা হয়।

৪. বিনা বিচারে হত্যা ও গুম করে ফেলা হয়।

৫. রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানসমূহকে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য ব্যবহার করা হয়।

৬. আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনী পুলিশসহ অন্যান্য সংস্থাকে পেটোয়া বাহিনী হিসেবে ব্যবহার করা হয়।

৭. যখন সাধারণ নাগরিকসহ সকলের কথা বার্তা, ফোন আলাপ, সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট মনিটর ও রেকর্ড করা হয়।

৮. যখন এই সমস্ত বিষয় রিপোর্ট না করার জন্য সংবাদমাধ্যম, সাংবাদিকদের গোয়েন্দা সংস্থা দিয়ে হুমকি দেয়া হয়।

লেখাটি ১১৬৬ বার পড়া হয়েছে
নিউজ অর্গান টোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


Share


Related Articles

Comments

ফেসবুক/টুইটার থেকে সরাসরি প্রকাশিত মন্তব্য পাঠকের নিজস্ব ও ব্যক্তিগত মতামতের প্রতিফলন, এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোট ভিসিটর সংখ্যা
৭৮৫২১০২৪

অনলাইন ভোট

image
মাদক বিরোধী অভিযানের নামে অব্যাহত ক্রসফায়ার সমর্থন করেন কি?

আপনার মতামত
হ্যাঁ
না
ভোট দিয়েছেন ১১২ জন

আজকের উক্তি

নির্বাচনকালীন সরকার কিংবা সহায়ক সরকার বিষয়টি রাজনৈতিক, এ বিষয়ে আমার কোনো বক্তব্য নেই: প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদা
Changer.com - Instant Exchanger