লন্ডনে এনএইচএস কর্মীদের ফ্রি পিপিই তৈরি করে দিচ্ছেন বাংলাদেশী মহিলারা

বিশেষ প্রতিবেদক।

“আওয়ার ভ্যারাইটি ক্লাব”, জ্যান্ডারকোর্ট, বেথনাল গ্রীন,লন্ডন এর প্রজেক্ট ম্যানেজার এবং কম্যূনীটি এ্যাক্টিভিষ্ট আতিয়া বেগম ঝর্ণা ও ‘সোসাইটি লিংকের’ যৌথ উদ্যোগে NHS এর জন্য এক হাজার PPE(Personal Protective Equipment) তৈরির পদক্ষেপ নেয়া হয়।

এই মহৎ কাজে স্বতস্ফূর্ত ভাবে এগিয়ে আসেন স্থানীয় OVC এর সদস্যগন। তাঁরা ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কারদের সহযোগিতার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে দুইশতাধিক PPE তৈরি করতে সক্ষম হয়েছেন, খুব শীঘ্রই একহাজার সম্পন্ন হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন আতিয়া বেগম। তিনি একজন ব্রিটিশ বাংগালী হিসেবে নিজেকে গর্বিত মনে করেন এরকম একটি সেবামূলক কাজে এগিয়ে আসতে পেরে। তাঁর মতে সকলের এগিয়ে আসা দরকার।

তিনি কৃতজ্ঞতা জানান ক্লাবের সকল সদস্য ও উপদেষ্টা মন্ডলী – শিক্ষক ও সাংবাদিক জনাব সৈয়দ আফসার উদ্দিন, শিক্ষক জনাব তাহেরা বেগম এবং ডাক্তার সুফিয়া বেগমকে।

আতিয়া বেগম সম্প্রতি আরো একটি মানবিক কাজে নিজেকে সংযুক্ত করেন। Channel S UK এর ‘FEED 5000’ প্রজেক্ট এ তিনি পার্টনারশীপে ফান্ড রেইজিংয়ের দায়ীত্ব নেন। করোনাকালে দূর্যোগঘন সিলেটের প্রত্যন্ত গ্রামের অসহায় মানুষদের ১ মাসের খাবার সরবরাহ করা হয়। কিছু সময়ের জন্য হলেও দরিদ্র মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে পেরে আতিয়া বেগম সন্তুষ্ট।

এই মহৎ কাজে লন্ডনের জনাব মোঃ লাল মিয়া এবং বাংলাদেশে উনার ছোট ভাই প্রফেসর মোঃ কামাল মিয়া ও মোঃ কালা মিয়া সাহেব সহযোগিতা করায়, এই সেবামূলক প্রজেক্টের কাজটি সুসম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে।

বলাবাহুল্য আতিয়া বেগম দীর্ঘদিন যাবত ইষ্ট লন্ডন মস্ক ফান্ড রেইজিং, RFC(Ramadan Family Commitment), Iqra International এর মত বিভিন্ন চ্যারিটি অর্গ্যানাইজেশন গুলোকে উদারতার সহিত ফান্ড রেইজিংয়ের মাধ্যমে সহযোগিতা করে আসছেন।

তিনি অনেক আশাবাদী, ভবিষ্যতে দেশে-বিদেশে আরো জনকল্যাণমূলক কাজ করে যাবেন, এজন্য দেশবিদেশের কম্যূনীটির সকলের কাছে দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করছেন।

Add your comment:

Related posts